Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 3.0/5 (10 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৬-৩০-২০১৭

সৌদি থেকে দেশে ফিরে স্ত্রী-পুত্রসহ নিহত প্রবাসী

সৌদি থেকে দেশে ফিরে স্ত্রী-পুত্রসহ নিহত প্রবাসী

গোপালগঞ্জ, ৩০ জুন- দীর্ঘদিন পর প্রবাস থেকে দেশে এসেছিলেন বাগেরহাটের শরণখোলা উপজেলার খুড়িয়াখালী গ্রামের হালিম আকন। ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে স্ত্রী-পুত্ররা তাকে বরণ করেছিলেন। কিন্তু ঘরে ফেরা হলো না দীর্ঘদিন পর মিলিত হওয়া পরিবারটির। পথে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারায় পরিবারের সব কজন সদস্য। সঙ্গে হালিম আকনের শ্যালকও।    

গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী উপজেলার গেড়াখোলা নামক স্থানে সংঘটিত ওই দুর্ঘটনায় আরো মারা যান মাইক্রোবাসের চালক। আহত হয় ১৫ জন বাসযাত্রী।

আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে দুর্ঘটনাটি ঘটে। নিহতরা হলেন, সৌদি প্রবাসী হালিম আকন, তার স্ত্রী আসমা বানু, ছেলে সিহাব ও সুজন আকন,  শ্যালক বাদল হাওলাদার ও মাইক্রাবাসচালক। তাদের সবার বাড়ি বাগেরহাট জেলার শরনখোলার খুড়িয়াখালী গ্রামে।

কাশিয়ানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ কে এম আলীনুর হোসেন জানান, সৌদি প্রবাসী হালিম   আকন বুধবার রাতে সৌদি আরব থেকে দেশে ফেরেন। তাকে ঢাকার শাহজালাল বিমানবন্দরে অভ্যর্থনা জানান স্ত্রী, দুই ছেলে ও শ্যালক। সেখান থেকে তারা মাইক্রোবাসে করে বাড়ি ফিরছিলেন।


পথিমধ্যে শরণখেলায় তাদের মাইক্রোবাসের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয় গোপালগঞ্জ থেকে ছেড়ে যাওয়া ঢাকাগামী সেবা গ্রীণ লাইনের একটি যাত্রীবাহী বাসের। এতে মাইক্রোবাসটি বাসের নিচে ঢুকে দুমড়ে-মুচড়ে যায়। ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারায় মাইক্রোবাস পাঁচ আরোহী ও চালক।

গোপালগঞ্জ ফায়ার স্টেশনের পরিদর্শক নিয়ামুল হুদা বলেন, দুর্ঘটনায় নিহতদের শরীর ছিন্ন-বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। গোপালগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস, কাশিয়ানী পুলিশ ও  স্থানীয়দের সহায়তায় হতাহতদের উদ্ধার কর হয়েছে। অন্তত ১৫ যাত্রী আহত হয় দুর্ঘটনায়।

কাশিয়ানী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মো. জাহাঙ্গীর হোসেন  জানান, আহতদের মধ্যে ১৪ জনকে কাশিয়ানী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। তারা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরে গেছে।

ভাঙ্গা হাইওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ মো. এজাজুল ইসলাম জানান, তারা দুর্ঘটনায় নিহত ছয়টি লাশ বুঝে নিয়েছে। নিহতদের স্বজনরা  যদি ময়নাতদন্ত ছাড়া লাশ নিতে চায় তাহলে নিয়মানুযায়ী স্বজনের কাছে লাশ বুঝে দেয়া হবে। তা না হলে ময়নাতদন্ত শেষে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

আর/১২:১৪/৩০ জুন

গোপালগঞ্জ

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে