Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৭-২১-২০১৭

মুহুরী নদীর বাঁধ ভেঙ্গে ফুলগাজীর ৮টি গ্রাম প্লাবিত

মুহুরী নদীর বাঁধ ভেঙ্গে ফুলগাজীর ৮টি গ্রাম প্লাবিত

ফেনী, ২১ জুলাই- অবিরাম বৃষ্টি ও ভারতীয় পাহাড়ি ঢলের পানির চাপে মুহুরী নদীর তিনটি বাঁধ ভেঙ্গে ফেনী জেলার ফুলগাজী উপজেলার প্রায় আটটি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। এতে পুকুর ও ফসলি জমিসহ রাস্তাঘাটের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে এ ঘটনা ঘটে। ফুলগাজী উপজেলার প্লাবিত গ্রামগুলোর মধ্যে রয়েছে উপজেলার দৌলতপুর, দক্ষিণ দৌলতপুর, পূর্ব ঘনিয়া মোড়, কহুয়া, সাহাপাড়া, দেড়পাড়া, নিলক্ষী, গোসাইপুর ইত্যাদি। ফলে অসংখ্য ঘরবাড়ি, পুকুরে চাষ করা মাছের খামার ও ফসলি জমির ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। রাস্তাঘাট ভেঙ্গে গেছে। পানিবন্দী হয়ে পড়েছে সাধারণ মানুষ।

এদিকে খবর পেয়ে রাতেই ফেনী জেলা প্রশাসক মনোজ কুমার রায় স্থানীয় সরকারের উপ-পরিচালক আবু দাউদ মো. গোলাম মোস্তফা, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) দেবময় দেওয়ান ঘটনা স্থল পরিদর্শন করেন।

সজেমিনে গিয়ে দেখা যায়, ফেনী-পরশুরাম সড়কের ঘনিয়া মোড়া ও ফুলগাজী বাজারে পানি উঠায় শুক্রবার সকাল থেকে যানচলাচল বন্ধ রয়েছে। বন্যা কবলিত এলাকাগুলোতে যানচলাচল বন্ধ থাকায় যাত্রীসহ স্থানীয় চরম ভোগান্তি হচ্ছে। অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছে সিএনজি ও বাস। গতকাল বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে মুহুরী নদীর ফুলগাজী উপজেলার সদর ইউনিয়নের উত্তর দৌলতপুর গ্রামে তিনটি স্থানে বাঁধ ভেঙ্গে উত্তর দৌলতপুর, দক্ষিণ দৌলতপুর, ঘনিয়া মোড়া, কহুয়া, সাহাপাড়া, দেড়পাড়া, নিলক্ষী, গোসাইপুরসহ আটটি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। আজ শুক্রবার ১৪.৫০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে। বিপদ সীমানার প্রায় দেড় সেন্টিমিটার উপরে প্রবাহিত হচ্ছে। অর্থ্যাৎ গতরাতে মুহুরী নদীর পানি বিপদ সীমার ১৩.৪৭ সে.মি. শুক্রবারে বেড়ে হয়েছে ১৪.৫০ সে. মি.। সাধারণ সীমা যেখানে ১৩ সে. মি.। স্থানীয়রা অনেকে নদীর বাধ ভাঙ্গার জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ডে কতৃপক্ষকে দায়ী করেছেন।

অন্যদিকে গতকাল বৃহস্পতিবার পরশুরাম উপজেলার সিলোনিয়া নদীর দক্ষিণ পাটনি নামক স্থানে পাড়ে নির্মিত বেড়িবাঁধ ভেঙ্গে কয়েক গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার সন্ধায় উপজেলার মির্জানগর ইউনিয়নের মনিপুর দক্ষিণ পাটনি নামক অংশে বেড়িবাঁধ ভেঙ্গে রাস্তাঘাট ও ফসলি জমি তলিয়ে যায়।

স্থানীয়রা জানায়, টানা বৃষ্টি ও ভারতীয় পাহাড়ী বন্যায় মনিপুর গ্রামের উপর দিয়ে প্রবাহিত সিলোনিয়া নদীর পাড়ে বেড়িবাঁধ ভেঙ্গে যায়। ফলে মনিপুর, সাহেব নগর, মেলাঘরসহ আশপাশের এলাকায় পানি প্রবেশ করে। এতে করে এসব এলাকার কয়েক হাজার মানুষের দুর্ভোগে পড়ে।

ফুলগাজী উপজেলা নির্বাহী অফিসার কিসিঞ্জার চাকমা জানান, আমাদের কাছে পর্যাপ্ত পরিমাণ ত্রাণ মওজুদ আছে বন্যায় ক্ষতি গ্রস্তদের জন্য ইতোমধ্যে শুকনো খাবার বিতরণ করা হচ্ছে এবং জেলা প্রশাসনের ত্রাণ ভান্ডার থেকে ২০ মেট্টিকটন চাউল নগদ ৭৫ হাজার টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে।

ফুলগাজী সদর ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, গতকাল রাত এগারোটার পর থেকেই আমি ঘটনা স্থলে আছি। বিষয়টি আমি পানি উন্নয়ন বোর্ড ও ঊর্ধ্বতন কর্মকতাদের জানিয়েছি।

ফেনী পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী কহিনুর আলম বলেন, মুহুরী নদীর পানি বিপদ সীমার ১৩.৪৭ সে.মি. ওপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ায় নদীর বাঁধের বাম তীরের উত্তর ও দক্ষিণ দৌলতপুর এবং ঘনিয়ামোড়া অংশ ভেঙে যায়। এতে ওই সব এলাকার লোকালয় পানি ঢুকে পড়ে।

এআর/২৩:৪৫/২১ জুলাই

ফেনী

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে