Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৭-২৮-২০১৭

আওয়ামী লীগ এমপিকেন্দ্রিক, দুই বলয় বিএনপিতে

জাহাঙ্গীর হোসেন


আওয়ামী লীগ এমপিকেন্দ্রিক, দুই বলয় বিএনপিতে

রাজবাড়ী, ২৮ জুলাই- একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি দুই দলই ঘর গোছানোর চেষ্টা করছে। আওয়ামী লীগ চাইছে রাজবাড়ীর দুটি সংসদীয় আসনই ধরে রাখতে। আর বিএনপি চাইছে হারানো আসন দুটি পুনরুদ্ধার করতে।

এদিকে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি দুটি দলেরই জেলা কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে কেন্দ্র থেকে। ফলে কমিটি নিয়ে দুই দলেই অসন্তোষ রয়েছে। আওয়ামী লীগের রাজনীতি অনেকটাই সংসদ সদস্যকেন্দ্রিক। কারণ দুটি আসনের সংসদ সদস্যরাই দলে জেলা কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক। 

তাঁদের বাইরে ভেতরে ভেতরে আরেকটি ধারা রয়েছে, যারা নিজেদের অবমূল্যায়িত ও বঞ্চিত বলে দাবি করেছে। তারা বলছে, দলে নতুন যোগ দেওয়া লোকজনই সংসদ সদস্যদের কাছের লোক। জনসম্পৃক্ততা নেই এমন ব্যক্তি ও নেতাদের সঙ্গেই সংসদ সদস্যদের ঘনিষ্ঠতা। তবে সংসদ সদস্যরা এসব অভিযোগ নাকচ করে দিয়েছেন।

অন্যদিকে বিএনপিতে রয়েছে দুটি গ্রুপ। একটি দলের জেলা কমিটির সভাপতি এবং অন্যটি সাধারণ সম্পাদককেন্দ্রিক। সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশিদের বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগের লেজুড়বৃত্তি করার অভিযোগ রয়েছে দলের একাংশের। তবে তিনি এ অভিযোগ নাকচ করে দিয়েছেন।

আওয়ামী লীগ : দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, রাজবাড়ীর দুটি নির্বাচনী এলাকায় আওয়ামী লীগে প্রকাশ্য বিরোধ নেই। তবে ভেতরে ভেতরে নেতাকর্মীদের মধ্যে ক্ষোভ রয়েছে। জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে দুজন সংসদ সদস্য থাকায় অন্য নেতারা তাঁদের দিকেই তাকিয়ে থাকেন। সংসদ সদস্যরা কেন্দ্রীয় কর্মসূচি পালন করলে এবং ওই সব নেতাকে ডাকলে  তাঁরা উপস্থিত হন। ফলে এমপিকেন্দ্রিক হচ্ছে এখন সব কর্মসূচি পালন।

নেতাকর্মীরা বলছে, অন্য দল থেকে আওয়ামী লীগে যোগ দেওয়া লোকজনকে সংসদ সদস্যরা বেশি মূল্যায়ন করছেন। সে কারণে দলের পুরনো ও পরীক্ষিত নেতারা অবমূল্যায়িত হচ্ছেন। এসব কারণে দলের সাংগঠনিক অবস্থা নড়বড়ে হয়ে গেছে। ‘চেন অব কমান্ড’ অনেকটাই ভেঙে পড়েছে। তারা আরো জানায়, গত ১০ এপ্রিল কেন্দ্র থেকে জেলা কমিটি অনুমোদন দেওয়া হয়। এ কমিটিতে একাধিক সম্পাদক ও সহসভাপতি পদে নবাগতদের রাখা হয়েছে।

এ ছাড়া নেতাকর্মীরা জানায়, দলের সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠন যুবলীগ, মহিলা লীগ, যুব মহিলা লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগের জেলা কমিটি মেয়াদ উত্তীর্ণ। গ্রুপিং রয়েছে জেলা কৃষক লীগ ও ছাত্রলীগে।

জেলা আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশবিষয়ক সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা এস এম নওয়াব আলী বলেন, ১৯৭৫ সালে এবং ১৯৮৮ সালে রাজনীতির কারণেই তাঁকে কারাবরণ করতে হয়েছে। তিনি সদর উপজেলা আওয়ামী লীগে তিনবার সভাপতি ও তিনবার সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। অথচ তিনিসহ বেশির ভাগ প্রকৃত নেতাকর্মী অবমূল্যায়নের শিকার হচ্ছেন।

জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অসীম কুমার পাল বলেন, দলকে সুসংগঠিত করা জরুরি। নতুবা এর পরিণতি ভালো হবে না।

দুই সংসদীয় আসনে আওয়ামী লীগের অবস্থান : রাজবাড়ীতে বর্তমানে তিনজন সংসদ সদস্য রয়েছেন। তাঁরা হলেন রাজবাড়ী-১ আসনে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাজী কেরামত আলী। রাজবাড়ী-২ আসনে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. জিল্লুল হাকিম। আর সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য হলেন জেলা মহিলা লীগের সভানেত্রী কামরুন নাহার চৌধুরী ওরফে লাভলী চৌধুরী।

রাজবাড়ী-২ আসনটি পাংশা, বালিয়াকান্দি ও কালুখালী উপজেলা নিয়ে গঠিত। এ আসনে আগামী নির্বাচনে বর্তমান সংসদ সদস্য ছাড়াও স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের কেন্দ্রীয় সভাপতি অধ্যাপক ডা. এম ইকবাল আর্সনাল, স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ সোহেল রানা টিপু, কেন্দ্রীয় কৃষক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নুরে আলম সিদ্দিকী হক মনোনয়ন চাইতে পারেন বলে জানা গেছে। 

স্বাভাবিকভাবেই সংসদ সদস্যের বাইরে তাঁদের অবস্থান। তাঁদের সঙ্গে রয়েছেন পাংশা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফরিদ হাসান ওদুদসহ আরো বেশ কয়েকজন নেতা। তাঁরা এলাকায় শক্ত অবস্থানে রয়েছেন বলেও নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে।

অধ্যাপক ডা. এম ইকবাল আর্সনাল বলেন, এ সংসদীয় আসনের তিনটি উপজেলা এলাকাই অস্থিতিশীল। সেখানকার আওয়ামী লীগের নিবেদিত নেতাকর্মীরা অস্বস্তির মধ্যে রয়েছে। তারা প্রশাসনিকভাবে হয়রানির শিকারও হচ্ছে। মনোনয়ন প্রত্যাশার কথা জানিয়ে তিনি বলেন, তিনি দীর্ঘ ৩৫ বছর ধরে পেশাজীবী সংগঠনগুলোর নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন। তাঁর বাবা প্রয়াত ডা. এ কে এম আসজাদও এ আসনে সংসদ সদস্য ছিলেন। ডা. ইকবাল বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী চাইলে আমি এমপি প্রার্থী হব। ’

কেন্দ্রীয় কৃষক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নুরে আলম সিদ্দিকী হক বলেন, এ এলাকায় আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনের প্রতিটি স্তরে গ্রুপিং সৃষ্টি করেছেন স্থানীয় সংসদ সদস্য। বিগত ইউনিয়ন পরিষদ ও উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে একাধিক প্রার্থী দাঁড় করিয়ে দলের মধ্যে বিভেদ জোরালো করেছেন সংসদ সদস্য। তিনি মনে করেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে রাজবাড়ী-২ আসনে প্রার্থী বদল জরুরি।

স্বেচ্ছাস্বেবক লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ সোহেল রানা টিপুও দাবি করেন, সংসদ সদস্য জিল্লুল হাকিম ও তাঁর সমর্থকদের বাইরে দলীয় নেতাকর্মীরা অবহেলিত। তিনি আশা করছেন, এ আসনে দল তাঁকে মনোনয়ন দেবে।

সংসদ সদস্য জিল্লুল হাকিম বর্তমানে লন্ডনে অবস্থান করায় তাঁর বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

রাজবাড়ী-১ আসনে সংসদ সদস্য কাজী কেরামত আলীর বিরুদ্ধেও তৃণমূলের বহু নেতাকর্মীর ক্ষোভ রয়েছে। বঞ্চিত হয়েছে দাবি করে এসব নেতাকর্মী জানায়, তারা এখন চুপচাপ বসে আছে। অন্যদিকে কোনো কোনো নেতাকর্মী এখন প্রকাশ্যেই সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য রাজবাড়ী জেলা মহিলা লীগের সভানেত্রী কামরুন নাহার চৌধুরী ওরফে লাভলী চৌধুরী ও তাঁর স্বামী রাজবাড়ী পৌরসভার মেয়র মহম্মদ আলী চৌধুরীর সঙ্গে কাজ করছে।

এ আসনে এ দুজন সংসদ সদস্য ছাড়াও মনোনয়ন প্রত্যাশা করছেন আরো কয়েকজন। তাঁদের মধ্যে আছেন রাজবাড়ী জেলা পরিষদের সাবেক প্রশাসক ও জেলা আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি আকবর আলী মর্জি, রাজবাড়ী পৌরসভার মেয়র মহম্মদ আলী চৌধুরী, সংসদ সদস্য কাজী কেরামত আলীর ভাই জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কাজী ইরাদত আলী, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ফকির আব্দুল জব্বার, আরেক সহসভাপতি ও জেলা বার অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি গণেশ নারায়ণ চৌধুরী, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি এস এম নওয়াব আলী।

জেলা আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি আকবর আলী মর্জি বলেন, দলীয় কর্মকাণ্ড স্থবির হয়ে পড়েছে। দলকে বাঁচাতে হবে, সংকট দূর করতে হবে, ত্যাগী নেতাকর্মীদের মূল্যায়ন করতে হবে। নেতাকর্মীদের দাবির কারণেই এবার তিনি দলীয় মনোনয়ন চাইবেন।

দলের জেলা শাখার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কাজী ইরাদত আলী বলেন, তাঁর কারণে রাজবাড়ীতে আওয়ামী লীগ অনেকা শক্ত অবস্থানে রয়েছে। ফলে তিনি আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হিসেবে দলের কাছে মনোনয়ন চাইবেন।

সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য কামরুন নাহার চৌধুরী বলেন, তিনি সংসদ সদস্য হওয়ার পর রাজবাড়ীর রাজনীতিতে সুবাতাস বইতে শুরু করেছে। বিশেষ করে নারী নেত্রী, অবহেলিত, ত্যাগী নেতাকর্মীদের মূল্যায়ন বেড়েছে। তিনি মনে করেন, রাজবাড়ী-১ আসনের প্রার্থী হিসেবে দল তাঁকে মনোনয়ন দেবে।

সংসদ সদস্য কাজী কেরামত আলী বলেন, তিনি দলীয় নেতাকর্মীদের অবমূল্যায়ন করেন না। বরং দলকে সুসংগঠিত রাখার কাজটি তিনি নিবেদিতভাবে করে আসছেন। কেন্দ্রীয় সব কর্মসূচি তাঁর নেতৃত্বেই রাজবাড়ীতে পালন হয়ে আসছে। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগে কোনো কোন্দল বা গ্রুপিং নেই। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে প্রতিটি ইউনিয়নের নেতাকর্মীদের সঙ্গে মূল্যায়ন সভা করছেন। নেতাকর্মীরা তাঁর প্রতি সন্তুষ্ট। ফলে তিনি এবারও প্রার্থী হবেন।

বিএনপি : দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, রাজবাড়ীতে বিএনপির মধ্যে প্রকাশ্য গ্রুপিং রয়েছে। জেলা বিএনপি সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য আলী নেওয়াজ মাহমুদ খৈয়ম ও জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশিদকেন্দ্রিক দুটি বলয়ে দল বিভক্ত।

নেতাকর্মীরা জানায়, গত ১০ জুলাই কেন্দ্র থেকে ঘোষণা করা ১৫১ সদস্যের জেলা কমিটি নিয়েও নেতাকর্মীদের মধ্যে ব্যাপক অসন্তোষ বিরাজ করছে। তাদের অভিযোগ, কয়েকজন নেতা ঢাকায় অবস্থান করে কেন্দ্রীয় নেতাদের ভুল বুঝিয়ে এ ধরনের কমিটি করিয়েছে। কমিটি নিয়ে অসন্তোষ জেলায় দুটি আসনে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলের প্রার্থীর ফলাফলে প্রভাব ফেলবে।

জেলা বিএনপির জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি রোকন উদ্দিন চৌধুরী, সহসভাপতি মঞ্জুরুল আলম দুলাল, আফসার আলী সরদার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এ মজিদ বিশ্বাস বলেন, আগামী জাতীয় নির্বাচনে রাজবাড়ীর দুটি আসনে দলের প্রার্থীদের ক্ষতি করার জন্যই রাজবাড়ী জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশিদ যোগসাজশ করে টাকার বিনিময়ে অযোগ্য, নব্য বিএনপি ও সুবিধাবাদীদের নেতা বানিয়েছেন। 

দলের ক্রান্তিকালে যাঁরা রাজপথে ছিলেন তাঁদের অবমূল্যায়ন করা হয়েছে। তাঁদের দাবি, জেলা বিএনপির সহসভাপতি সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এম এ খালেক আওয়ামী লীগের লেজুড়বৃত্তি করছেন।

অভিযোগ অস্বীকার করে জেলা বিএনপির সহসভাপতি এম এ খালেক বলেন, তাঁর বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগের লেজুড়বৃত্তি করার অভিযোগ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। মূলত উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে থাকায় সরকারদলীয় সংসদ সদস্য ও সরকারি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে তাঁকে কাজের জন্যই মিশতে হয়।

জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশিদ তাঁর বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগের লেজুড়বৃত্তি করার অভিযোগ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করবেন না বলে জানান।

জেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য আলী নেওয়াজ মাহমুদ খৈয়ম বলেন, বিএনপি দেশে সবচেয়ে বড় রাজনৈতিক দল, এ দলে নেতা অনেক। ফলে কিছু দ্বিমত থাকবে এটাই স্বাভাবিক।

দুটি সংসদীয় আসনে বিএনপির মনোনয়নপ্রত্যাশী যাঁরা : রাজবাড়ী-১ আসনে সাবেক সংসদ সদস্য আলী নেওয়াজ মাহমুদ খৈয়ম, জেলা বিএনপির সহসভাপতি এম এ খালেক, আরেক সহসভাপতি আসলাম মিয়া, রাজবাড়ী পৌরসভার সাবেক মেয়র তোফাজ্জেল হোসেন মিয়া, জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সালাম মনোনয়ন চাইতে পারেন বলে শোনা যাচ্ছে।

আসলাম মিয়া জানান, দলের ক্রান্তিকালে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ফোরামের নেতা হয়ে তিনি বিপদগ্রস্ত নেতাদের পাশে থেকে আইনি সহযোগিতা দিয়েছেন। রাজবাড়ীতে ঝিমিয়ে পড়া দলীয় কর্মকাণ্ড চাঙ্গা করতে কাজ করছেন। তিনি দলের কাছে মনোনয়ন চাইবেন।

এম এ খালেক বলেন, তিনি মনোনয়ন চাইবেন। দল মনোনয়ন দিলে প্রার্থী হবেন।

সাবেক সংসদ সদস্য আলী নেওয়াজ মাহমুদ খৈয়ম বলেন, তিনি রাজবাড়ীতে দলকে সুসংগঠিত করতে, সামনে থেকে এগিয়ে নিতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। সেই সঙ্গে প্রতিনিয়ত হামলা-মামলায় জর্জরিত নেতাকর্মীদের পাশে থেকে তিনি সাহস জোগাচ্ছেন। তিনি মনে করেন, দল তাঁকেই মনোনয়ন দেবে।

রাজবাড়ী-২ আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশা করছেন সাবেক সংসদ সদস্য নাছিরুল হক সাবু ও জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশিদ।

হারুন বলেন, অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহণ করবে এবং তিনি দলের কাছে রাজবাড়ী-২ আসনের জন্য মনোনয়ন চাইবেন। দল মনোনয়ন দিলে তিনি প্রার্থী হবেন। নতুবা দল যাকে প্রার্থী করবে তিনি তা মেনে নিয়ে তার পাশে থাকবেন।

জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি নাছিরুল হক সাবু বলেন, এর আগে এ আসনে নির্বাচন করে বিজয়ী হয়েছেন তিনি। তিনি মনে করেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলীয় সভানেত্রী তাঁকেই মনোনয়ন দেবেন।

আওয়ামী লীগ ও বিএনপির বাইরে জাতীয় পার্টি রাজবাড়ীর দুটি আসনেই প্রার্থী দেবে বলে নিশ্চিত করেছেন দলটির নেতারা। জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি খন্দকার হাবিবুর রহমান বাচ্চু বলেন, দলের কাছে তিনি রাজবাড়ী-১ আসনে মনোনয়ন চাইবেন। পাংশা উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক রকিবুল ইসলাম শামীম রাজবাড়ী-২ আসনে মনোনয়ন চাইতে পারেন।

এ ছাড়া জামায়াতে ইসলামী, ওয়ার্কার্স পার্টি, জাতীয় সমাতান্ত্রিক দল (জাসদ) ও অন্যান্য দল জোট মহাজোটের সমীকরণ মিলিয়ে মনোনয়ন প্রত্যাশা করছে।

আর/০৭:১৪/২৮ জুলাই

রাজবাড়ী

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে