Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 3.0/5 (45 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৬-২১-২০১৬

রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দির টুপি যাচ্ছে মধ্যপ্রাচ্যে

রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দির টুপি যাচ্ছে মধ্যপ্রাচ্যে

রাজবাড়ী, ২১ জুন- আর মাত্র কয়েকদিন পরই ঈদ। পবিত্র ঈদুলফিতরকে সামনে রেখে ব্যস্ত সময় পার করছে রাজবাড়ী জেলার বালিয়াকান্দির টুপি তৈরির কারিগররা।
আর এই টুপির কাজ করেই স্বাবলম্বী হয়েছে উপজেলার নারুয়া ইউনিয়নের গাড়াকোলা গ্রামের প্রায় অর্ধশতাধিক পরিবার। দিনে দিনে রাজবাড়ীর টুপির সুনাম বেড়েই চলেছে। দেশের গন্ডি পেরিয়ে এখন রাজবাড়ীর টুপি রফতানি হচ্ছে মধ্যপ্রাচ্যোর একাধিক দেশে।

টুপি কারিগরেরা জানান, শুধু ঈদের সময়ে নয়, সারাবছর এই টুপি তৈরিতে ব্যস্ত থাকেন কারিগড়রা। দারিদ্র্যতার করালগ্রাসের শিকার অর্ধশতাধিক পরিবারের অসহায় নারীরা গৃহস্থালী কাজের পাশাপাশি টুপি তৈরি করে বাড়তি উপার্জনের মাধ্যমে সংসারের চাহিদা মেটাচ্ছেন। গত কয়েকবছর ধরে এসব নারীরা তাদের হাতের নিপুণ কারুকাজের মাধ্যমে তৈরি করছেন আধুনিক মানের টুপি।
টুপি তৈরির কারিগর মোছা. কোহিনূর বেগম জানান, প্রতিদিন গড়ে ৩টি টুপি তৈরি করতে পারি। প্রতিটি টুপির মজুরি হিসেবে ৩৫ টাকা পাই। এই মজুরিতে আমাদের চলতে খুব কষ্ট হয়। তবে সংসারের কাজের পাশাপাশি টুপি সেলাই করে সংসারের বাড়তি আয়ের ব্যবস্থা হয়েছে।

দশম শ্রেণিতে পড়ুয়া ছাত্রী সাদিয়া আফরীন বলেন, দরিদ্র পরিবারের সন্তান হয়েও লেখাপড়া চালিয়ে যেতে চাই। পরিবারের পক্ষে লেখাপড়া ও প্রাইভেটের টাকা জোগান দেওয়া সম্ভব না। তাই লেখাপড়ার পাশাপাশি বাড়িতে বসেই সেলাই মেশিনে টুপি সেলাই করে লেখাপড়ার খরচ জোগাতে পারছি। সরকারিভাবে যদি আমাদের মত অসহায় মেয়েদেরকে উন্নত সেলাই প্রশিক্ষণ দিয়ে ক্ষুদ্র ঋণের ব্যবস্থা যদি সরকার করে তাহলে গ্রামের নারীরা সংসারে বাড়তি আয়ের ব্যবস্থা করতে পারবে।

গ্রামের শিক্ষিত যুবক মো. বাকী বিল্লাহ বলেন, এই গ্রামের প্রবাসী হুমায়ুন কবির ভাই ওমানে থাকেন। তিনি এলাকার দরিদ্র মহিলাদের জন্য একটি কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করেছেন এবং দেশের অর্থনীতিতে ভূমিকা রাখছেন।

বালিয়াকান্দি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ জানান, গাড়াকোলা গ্রামের নারীদের নিখুঁত সূচিকর্ম খচিত টুপিগুলো বিভিন্ন মাধ্যমে ব্যবসায়ীদের হাত ঘুরে রফতানি হচ্ছে সৌদি আরব, ওমানসহ মধ্যপ্রাচ্যের কয়েকটি দেশে। মধ্যপ্রাচ্যর বিভিন্ন দেশে বাংলাদেশের এ টুপির যথেষ্ট কদর রয়েছে। সেই সাথে অর্জিত হচ্ছে বৈদেশিক মুদ্রাও। তবে অসহায় এসব নারীরা যদি সরকারি সহযোগিতায় সেলাই মেশিন ও ক্ষুদ্রঋণ পায় তাহলে তারা আরও পরিশ্রম করে তাদের সংসারে স্বচ্ছলতা ফিরিয়ে আনতে পারবে।

এ আর/১০:৫২/ ২১জুন

রাজবাড়ী

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে