Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০ , ১৪ আশ্বিন ১৪২৭

গড় রেটিং: 3.0/5 (104 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১১-৩০-২০১১

টিপাইমুখ বাধ প্রতিরোধে ঐক্যবদ্ধ প্রবাসীরা

টিপাইমুখ বাধ প্রতিরোধে ঐক্যবদ্ধ প্রবাসীরা
"যার যা কিছু আছে তা নিয়ে টিপাইমুখ বাধ প্রতিরোধে ঝাপিয়ে পড়ুন।
ভারত ঘোষনা দিয়েছে যে কোন মূল্যে টিপাইমুখ বাধ দিবে। ভারতের এই উক্তি দেখে আমরা খুবই বিস্মীত।  টিপাইমুখ বাধঁ ভারত যেখানে করতে চায় সেই এলাকাটি বিশ্বের সর্বাধিক ভূমিকম্পন ঝুকিপূর্ণস্থান হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে। তাই যে কোন সময় ভূমিকম্পের ফলে বাঁধ ভেঙ্গে পানির স্রোতে ভেসে যেতে পারে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যরে লিলাভূমি বৃহত্তর সিলেটের অববহিকা। সকলেই বানের স্রোতে ভেসে যেতে হবে। সুতরাং বাংলাদেশকে রক্ষার প্রশ্নে দলমত নির্বিশেষে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে বাঁধ নির্মানের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। তানা হলে জাতীয় জীবনে ফরাক্কার মতো আরও একটি অভিশাপ নিয়ে টিপাইমুখ বাধঁ আমাদের  জাতির অস্থিত্ব বিপন্ন করে ফেলবে। বাংলাদেশের স্বাধীনতা থেকে শুরু করে সর্বদাই ভারত আমাদের বন্ধুর পরিচয় দিয়েছে। তাই বন্ধুসুলোভ ব্যবহার করবে এটাই কাম্য অবশ্যই প্রভুর ন্যায় নয়। উপরোক্ত কথাগুলো বলেন আর্ন্তজাতিক টিপাইমুখ বাধ প্রতিরোধ কমিটির কেন্দ্রীয় আহবায়ক এ এন এম ঈসা। তিনি বলেন আর বসে থাকা যায় না, যার যা কিছু আছে তা নিয়ে টিপাইমুখ বাধ প্রতিরোধে ঝাপিয়ে পড়লে ভারত কোন অবস্থায়ই টিপাইমুখ বাধ দিতে পারবে না।
গত ২১শে নভেম্বর সমবার বিকালে আর্ন্তজাতিক টিপাইমুখ বাধ প্রতিরোধ কমিটির যুক্তরাজ্যস্থ নিউক্যাসেল শাখার উদ্যোগে এক সংক্ষিপ্ত আলোচনা এবং স্মারকলিপি হস্তান্তর করা হয়। আর্ন্তজাতিক টিপাইমুখ বাধ প্রতিরোধ কমিটির যুক্তরাজ্যস্থ নিউক্যাসেল শাখার আহবায়ক হাজী মতলিব মিয়া বলেন টিপাইমুখ বাধ প্রতিরোধে আমরা প্রবাসীরা ঐক্যবদ্ধ। বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে নিষেধ দিলে ভারত কোন অবস্থাই এই বাধ দিতে পারবে না। মহান আল্ল?াহ পাক বলেছেন- ?তোমরা তোমাদের ভাগ্য পরিবর্তনের চেষ্টা কর আমি আমি ফলাফল দেওয়ার মালিক?। আমরা চেষ্টার কোন ত্রুটি করতে চাই না। আর্ন্তজাতিক আইনের লঙ্ঘন করে বেআইনিভাবে কেউ কিছু করবে আর আমরা তা মেনে নিবো না। অন্যায়কে প্রশ্রয় দেওয়া অথবা অন্যায়কে মেনে নেওয়া উভয়ই সমান অপরাধ।

আর্ন্তজাতিক টিপাইমুখ বাধ প্রতিরোধ কমিটির যুক্তরাজ্যস্থ নিউক্যাসেল শাখার যুগ্ন আহবায়ক জনাব হাজী মোগল মিয়া বলেন, ভারতের কাছে প্রশ্ন সুরমা কুশিয়ারা আর্ন্তজাতিক নদী কি না? সুরমা কুশিয়ারার পানি যদি ভারত থেকে এসে থাকে তবে এগুলো আর্ন্তজাতিক নদী। আর আর্ন্তজাতিক নদীতে কোন এক দেশ চাইলেই বাধ দিতে পারে না। জাতিসংঘের মাধ্যমে আমরা আমাদের অধিকার বহাল রাখব। উপস্থিত অন্যান্য বক্তাগন বলেন জীবন দিয়ে হলেও জীবন ধবংশকারী এই টিপাইমুখ বাধঁ প্রতিরোধ করে বাংলাদেশকে বিপর্যয়ের হাত থেকে রক্ষা করবই।  এই হোক আজকের শপথ। জয় হবে শোষিতের, জয় হবে মেহেনতী মানুষের, জয় হবে নিপিরীত ভাগ্যহত জনতার। স্মারকলিপি হস্তান্তরের সময় উপস্থিত ছিলেন সর্বজনাব সৈয়দ মাছুদ আহমদ, হারুন মিয়া, হাজী রমজান উল্লাহ, মনওয়ার কোরেশী, তুহীন চৌধুরী, লিজু আহমদ, ছইদুল মিয়া, সৈয়দ মাহফুজুল ইসলাম, সহীদুল ইসলাম, মো: সরওয়ার আহমদ, কে ইসলাম, সৈয়দ ছুলুল আহমদ, বসরুক আলী জায়গীরদার, আব্দুল করিম, আলী আকবর, দরছ মিয়া, নিউক্যাসেল বাংলাদেশ এসোসিয়েশনের অর্ন্তবর্তী চেয়ারম্যান জনাব মাহতাব মিয়া, সাবেক সাধারন সম্পাদক জনাব মজিবুর রহমান মধু প্রমুখ।

যুক্তরাজ্য

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে