Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বুধবার, ৮ জুলাই, ২০২০ , ২৪ আষাঢ় ১৪২৭

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৪-২৯-২০২০

টঙ্গীতে করোনা ঝুঁকির মধ্যে শ্রমিক ও এলাকাবাসীর বিক্ষোভ

টঙ্গীতে করোনা ঝুঁকির মধ্যে শ্রমিক ও এলাকাবাসীর বিক্ষোভ

গাজীপুর, ৩০ এপ্রিল- গাজীপুরের টঙ্গীর মিলগেট এলাকায় করোনা ঝুঁকিতে হা-মীম গ্রুপের পোশাক কারখানায় ১৪ হাজার শ্রমিকের নিরাপত্তা না থাকায় এলাকাবাসী বাধা দেয় এবং শ্রমিকরা বিক্ষোভ করেন।

বুধবার সকালে করোনা ঝুঁকিতে শ্রমিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ব্যর্থ হওয়ায় শ্রমিকরা বিক্ষোভ করেন। অপরদিকে টঙ্গীর বিভিন্ন কারখানায় বকেয়া বেতনের দাবিতে শ্রমিকরা বিক্ষোভ করেছেন।

এলাকাবাসী ও কারখানার শ্রমিকরা জানান, গাজীপুরের টঙ্গীর মিলগেট এলাকায় করোনা ঝুঁকিতে শ্রমিকদের পর্যাপ্ত পরিমাণ নিরাপত্তা ব্যবস্থা না দিয়েই কারখানা পরিচালনা করাকে কেন্দ্র করে এলাকাবাসী শ্রমিকদের কারখানায় প্রবেশে বাধা দেন। শ্রমিকরা এলাকাবাসীর বাধার মুখে পড়ে শ্রমিকরাও তাদের নিরাপত্তাহীনতার দাবিতে বিক্ষোভ করতে থাকেন।

স্থানীয়দের অভিযোগ, গাজীপুর একটি শিল্পাঞ্চল এলাকা। এখানে লাখ লাখ শ্রমিক কাজ করেন। টঙ্গীর হা-মীম গ্রুপের শ্রমিকরা টঙ্গী ও ঢাকার তুরাগ থেকে এই পোশাক কারখানায় কাজ করতে আসেন, এতে করে তারা করোনা ঝুঁকিতে পরেছেন। এ জন্য শ্রমিকরা সকালে কারখানায় কাজ করতে আসলে এলাকাবাসী তাদের বাধা দেন।

কারখানার শ্রমিকরা অভিযোগ করেন, কারখানার ভেতরে শ্রমিকদের সামাজিক দূরত্ব ও শ্রমিকদের নিরাপত্তার জন্য কোনো পদক্ষেপ নেয়নি কারখানা কর্তৃপক্ষ। এ সময় শ্রমিকরাও নিরাপত্তা চেয়ে এলাকাবাসীর সঙ্গে বিক্ষোভে অংশ নেন। পরে কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদের সুরক্ষা নিশ্চিত করার আশ্বাস দিলে শ্রমিক ও এলাকাবাসী বিক্ষোভ প্রত্যাহার করে নেন।

গাজীপুর মেট্রো টঙ্গী পশ্চিম থানার ওসি মো. এমদাদ হোসেন জানান, কারখানার ভেতরে শ্রমিকদের সামাজিক দূরত্ব ও শ্রমিকদের নিরাপত্তার জন্য কোনো পদক্ষেপ নেয়নি কারখানা কর্তৃপক্ষ এমন অভিযোগ করে স্থানীয়রা। এ নিয়ে শ্রমিকদের কারখানায় প্রবেশে বাধা দেয়। পরে পরে কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে শ্রমিকদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করার আশ্বাস দিলে পরিবেশ স্বাভাবিক হয়।

অপরদিকে বুধবারও টঙ্গী শরীফপুরের বিভিন্ন পোশাক কারখানায় বকেয়া বেতন দাবিতে ও ছাঁটাইয়ের প্রতিবাতে শ্রমিকরা বিক্ষোভ করেছে।

গাজীপুর শিল্প পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুশান্ত সরকার জানান, গাজীপুরের দুই হাজার ৭২টি কারখানার মধ্যে বুধবার পর্যন্ত ৬৩৮টি কারখানা খোলা হয়েছে।

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের শরীফপুর এলাকার টেক্স টেক কোম্পানি লিমিটেড নামের পোশাক কারখানার শ্রমিকরা বুধবার সকালে কাজে যোগ দিতে কারখানার গেটে আসে। এ সময় কাজে যোগ দেয়ার জন্য সব শ্রমিককে কারখানায় প্রবেশ করতে দেয়া হলেও ৬০ জন শ্রমিকের কার্ড জমা নিয়ে তাদেরকে ভিতরে প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি। দীর্ঘক্ষণ গেটে অপেক্ষার পরও তারা ভিতরে প্রবেশ করতে না পেরে তাদের মাঝে অসন্তোষ দেখা দেয়।

গাজীপুর শিল্প পুলিশের ইন্সপেক্টর ইস্কান্দর হাবিব জানান, শ্রমিক অসন্তোষের খবর পেয়ে গাজীপুর শিল্প পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুশান্ত সরকার দ্রুত শ্রমিকদের শান্ত করার চেষ্টা করেন। তিনি কারখানার মালিক পক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে ছাঁটাই প্রক্রিয়া প্রত্যাহার করে ওই ৬০ শ্রমিককে কাজে যোগ দেয়ার অনুমতি দেয়ার অনুরোধ জানান। পরে কারখানার মালিকপক্ষ ওই ৬০ শ্রমিককে কাজে যোগ দেয়ার ঘোষণা দিলে অবরোধ তুলে নেয়।

সূত্র : যুগান্তর
এম এন  / ৩০ এপ্রিল

গাজীপুর

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে