Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শনিবার, ৪ জুলাই, ২০২০ , ২০ আষাঢ় ১৪২৭

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৫-১৭-২০২০

অগ্রিম ভাড়ার জন্য ৫ ছাত্রীকে আটকে রাখল মেস মালিক, উদ্ধার করল পুলিশ

অগ্রিম ভাড়ার জন্য ৫ ছাত্রীকে আটকে রাখল মেস মালিক, উদ্ধার করল পুলিশ

বগুড়া, ১৮ মে- বগুড়ায় অগ্রিম ভাড়া দিতে না পারায় সরকারি আজিজুল হক কলেজের পাঁচ ছাত্রীকে মেস মালিক বাড়ি যেতে দেননি। রোববার দুপুরে পুলিশ টের পেয়ে কামারগাড়ি এলাকার ছাত্রী নিবাস (মেস) থেকে তাদের উদ্ধার করে বাড়ি যাওয়ার ব্যবস্থা করেছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বগুড়ার সরকারি আজিজুল হক কলেজের ছাত্র-ছাত্রীরা হলে সিট না পেয়ে আশপাশের ১০ সহস্রাধিক শিক্ষার্থী কামারগাড়ি, জহুরুলনগর, পুরান বগুড়া, জামিলনগরের প্রায় ৫০০ ছাত্রাবাস ও ছাত্রী নিবাসে থাকেন। এদের অধিকাংশ বিভিন্ন জেলা ও উপজেলার। করোনা প্রাদুর্ভাবের সময় মালিকরা আগাম দুই মাসের ভাড়া ছাড়া ছাত্র-ছাত্রীদের কাপড় ও বইখাতা বের করতে দেননি বলে অভিযোগ রয়েছে।

রোববার দুপুরে শহরের কামারগাড়ি এলাকার শিউলী ছাত্রী নিবাসের ছাত্রীরা বাড়ি যাওয়ার জন্য বই-কাপড় বের করতে যান। এ সময় ছাত্রী নিবাসের মালিকের কেয়ারটেকার রেনু বেগমসহ অন্যরা আশপাশের ছাত্রী নিবাসের ছাত্রীদের আগাম দুই মাসের ভাড়া ছাড়া বের হতে নিষেধ করেন। এক সময় ছাত্রীদের সঙ্গে তর্কে জড়িয়ে যান ছাত্রী নিবাসের মালিক। একপর্যায়ে ছাত্রী নিবাসের মালিক ছাত্রীদের ভেতরে রেখে মূল ফটকে তালা ঝুলিয়ে দেন।

খবর পেয়ে পুলিশ ও সাংবাদিকরা সেখানে যান। এ সময় শতাধিক ব্যক্তি ও ছাত্রী নিবাসের মালিক একত্র হয়ে বলে এটা তাদের নিয়ম। পুলিশের হস্তক্ষেপে পরে ৫ ছাত্রী বই-কাপড়-চোপড়সহ বাড়িতে যেতে পারেন।

বগুড়া স্টেডিয়াম পুলিশ ফাঁড়ির এসআই জাহাঙ্গীর আলম জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে ৫ ছাত্রীকে তালাবদ্ধ রাখা অবস্থা থেকে উদ্ধার করে বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়া হয়। ওই ছাত্রী নিবাসটিতে প্রায় ৫০ জন ছাত্রী থাকতেন।

কেয়ারটেকার রেনু বেগম বলেন, বাড়ির মালিক হাজী রমজান আলীর সঙ্গে কথা বলেই অন্য মালিকদের নিয়ে তালা ঝুলিয়ে ছিলাম।

অপর মালিক মাছুম জানান, আমরা ছাত্রী নিবাসের মালিকরা এক হয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছি আগাম দুই মাসের ভাড়া ছাড়া কাউকে বই-কাপড়-চোপড় নিয়ে বাড়ি যেতে দেয়া হবে না। তাই সবাই মিলে ভাড়া না দেয়ায় তালাবদ্ধ করা হয়।

ওই ছাত্রী নিবাসের ছাত্রী বিথী জানান, মে মাস পর্যন্ত ভাড়া পরিশোধ করা হয়েছে। আগাম আরও দুই মাসের ভাড়া চায়। করোনার সময় বিভিন্ন ছাত্র ও ছাত্রী নিবাসের মালিকরা জোট হয়ে এভাবে নির্যাতন করছে। ভাড়াও তারা বেশি নেয়।

জহুরুলনগরের অপর ছাত্রী নিবাসের মালিক আসলাম আলী জানান, এটা অমানবিক। আজিজুল হক কলেজের আশপাশে প্রায় ৫০০ ছাত্র ও ছাত্রী নিবাসের ১০ হাজারের মতো শিক্ষার্থী থাকেন। করোনার সময় বেশিরভাগ মালিক এ রকম আচরণ করছেন।

সূত্র: যুগান্তর 

আর/০৮:১৪/১৮ মে

বগুড়া

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে