Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শুক্রবার, ১০ জুলাই, ২০২০ , ২৬ আষাঢ় ১৪২৭

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৫-১৯-২০২০

প্রধানমন্ত্রীর উপহার বিতরণে অনিয়মের তদন্ত শুরু

প্রধানমন্ত্রীর উপহার বিতরণে অনিয়মের তদন্ত শুরু

বগুড়া, ১৯ মে- প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার বিতরণের আগেই বগুড়ার শিবগঞ্জে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের অ্যাকাউন্ট খোলার নামে অসহায় মানুষের কাছ থেকে ৫০০ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) গঠিত তদন্ত কমিটি গতকাল সোমবার সকালে ঘটনাস্থল ময়দানহাট্টায় গিয়ে ভুক্তভোগী অসহায় নারীদের সাক্ষ্যগ্রহণ করে।

তিন সদস্য তদন্ত কমিটির প্রধান উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আল মুজাহিদ সরকার বলেন, ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে যেসব অসহায় নারী কথা বলেছেন, তাদের খুঁজে বের করে সাক্ষ্য নেওয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে ইউপি চেয়ারম্যান এসএম রূপম, রাহী টেলিকমের মালিক এরফান আলীর বক্তব্য নেওয়া হয়েছে। আজ মঙ্গলবার আবারও গিয়ে সাক্ষ্যগ্রহণ করা হবে। তিনি বলেন, বিষয়টি অত্যন্ত স্পর্শকাতর। সব বিষয় খেয়াল রেখে এগোচ্ছে তদন্ত কমিটি। তিন দিনের নির্ধারিত সময় অনেকটাই কম হয়েছে। এর মধ্যে তদন্তকাজ শেষ না হলে আরও দুদিন সময় বাড়ানোর জন্য আবেদন করা হবে। কমিটির অন্য দুই সদস্য হলেন উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা এনামুল হক চৌধুরী ও প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) জিন্দার আলী।

জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মোবাইল ব্যাংকিং পরিসেবার মাধ্যমে করোনার কারণে কর্মহীন হয়ে ক্ষতিগ্রস্ত ৫০ লাখ দরিদ্র পরিবারকে নগদ এককালীন আড়াই হাজার টাকা করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। জনপ্রতিনিধিরা এসব দরিদ্রের তালিকা তৈরি করেন। বগুড়া জেলার অন্যান্য স্থানের মতো শিবগঞ্জ উপজেলার ময়দানহাট্টা ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ সমর্থিত চেয়ারম্যান এসএম রূপমও তার ইউনিয়নের ৫০৬ জনের তালিকা তৈরি করেন। তবে যেসব দরিদ্র মানুষের মোবাইল ব্যাংকিং অ্যাকাউন্ট নেই, তাদের হিসাব খুলে দিতে দাড়িদহ বন্দরে রাহি টেলিকমের মালিক এরফান আলীকে দায়িত্ব দেন। তিনি প্রতি দুস্থকে বিকাশ হিসাব খোলা ও সিমের দাম হিসেবে ২২০ টাকা ও ইউনিয়ন পরিষদের ট্যাক্স ২৮০ টাকা করে মোট ৫০০ টাকা করে আদায় করেন। ধারদেনা করে ১৬৫ জন দুস্থ ওই দোকান থেকে ৫০০ টাকা দিয়ে বিকাশ হিসাব খোলেন। এদিকে চেয়ারম্যানের এ টাকা আদায়ের বিষয়টি জানাজানি হলে সচেতন মানুষের মাঝে বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়। কেউ কেউ ঘটনার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেন। সেই ভিডিও ভাইরাল হলে শনিবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আলমগীর কবির তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেন।

শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আলমগীর কবির জানান, তদন্ত কমিটি মাঠে গিয়ে কাজ করছে। কমিটিকে আগামী তিন দিনের মধ্যে রিপোর্ট দিতে বলা হয়েছে। অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেলে ময়দানহাট্টা ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে সুপারিশ করা হবে।

এর আগে গত এপ্রিলে ১০ টাকা কেজি দরের চাল বিতরণে অনিয়মের অভিযোগে শিবগঞ্জের ময়দানহাট্টা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এসএম রূপমের ভাই মশিউর রহমানের ডিলারশিপ বাতিল করা হয়। দুদক বগুড়া সমন্বিত কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক আমিনুল ইসলাম তার বিরুদ্ধে মামলাও করেছেন। চাল বিক্রিতে অনিয়ম ও পাচারের ঘটনা ফাঁস করায় ওই ইউনিয়নের সদস্য শাহনাজ বেগম ও স্থানীয় সংবাদকর্মী শাহজাহান আলীকে চেয়ারম্যান ও তার লোকজন মারধর করেন। এ ঘটনায় চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা করেন সাংবাদিক শাহজাহান আলী।

সূত্র: আমাদের সময়
এম এন  / ১৯ মে

বগুড়া

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে