Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, মঙ্গলবার, ১১ আগস্ট, ২০২০ , ২৭ শ্রাবণ ১৪২৭

গড় রেটিং: 2.0/5 (2 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৬-০৮-২০২০

যশোরে এসএসসির ফলাফল চ্যালেঞ্জ ৩৪ হাজারের বেশি পরীক্ষার্থীর

যশোরে এসএসসির ফলাফল চ্যালেঞ্জ ৩৪ হাজারের বেশি পরীক্ষার্থীর

যশোর, ০৮ জুন- সদ্যপ্রকাশিত এসএসসি পরীক্ষার ফলাফল চ্যালেঞ্জ করেছে যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের ৩৪ হাজার ২৮৪ শিক্ষার্থী। তারা সকলেই নিজেদের খাতা পুণঃপরীক্ষণের আবেদন করেছে। গতবছর এই আবেদনের সংখ্যা ছিল ২৫ হাজার ৮৫৯টি। 

এবার বিষয়ভিত্তিক আবেদনের শীর্ষে রয়েছে ইংরেজি ও গণিত। সবচেয়ে বেশি আবেদন পড়েছে ৭৮ বা ৭৯ নম্বর পাওয়া শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে। ১ বা ২ নম্বর পেলে পরবর্তী গ্রেড অর্থাৎ জিপিএ-৫ পাওয়া যাবে এমন আশায় কয়েক হাজার শিক্ষার্থী আবেদন করেছেন।

শিক্ষাবোর্ডটির পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর মাধব চন্দ্র রুন্দ্র বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, চলতি মাসের ৩০ জুন পুণঃনিরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হবে।

বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, গত ৩১ মে এসএসসি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হয়। অনেকে কাঙ্খিত ফলাফল না পেয়ে পরীক্ষার খাতা পুণঃনিরীক্ষার আবেদন করেছে। আবেদনকারীদের মধ্যে ইংরেজি প্রথমপত্রে ৩ হাজার ৬৯৬ জন, ২য় পত্রে ৩ হাজার ৬৯৬ জন, বাংলা প্রথমপত্রে ১ হাজার ৭৫১ জন, ২য় পত্রে ১ হাজার ৭৫১ জন, গণিতে ৩ হাজার ২৪১ জন, ভূগোল ও পরিবেশে ১ হাজার ১৫৮ জন, ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষায় ১ হাজার ১৩ জন, হিন্দু ধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা ১২৪ জন, খৃস্টান ধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা ৯ জন, উচ্চতর গণিতে ২ হাজার ১৬০ জন, বিজ্ঞানে ২ হাজার ৬২ জন, কৃষি শিক্ষায় ১ হাজার ২১০ জন, পর্দাথ বিজ্ঞানে ১ হাজার ৭৮৯ জন, রসায়নে ২ হাজার ৪৯০ জন, জীববিজ্ঞানে ১ হাজার ৩৪১ জন, নাগরিক ও নাগরিকত্ব ১১৩ জন, অর্থনীতিতে ৩৭০ জন, ব্যবসায় উদ্যোগে ২০৯ জন, হিসাববিজ্ঞানে ৪৮৭ জন, বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচিতিতে ২ হাজার ৭৫৯ জন, হোম বিজ্ঞান ৩৩ জন, ব্যাংকিং ও বিমাতে ৩৮৮ জন, বাংলাদেশের ইতিহাস ও বিশ্ব নাগরিকতত্ব ৮১৯ জন, তথ্য প্রযুক্তিতে ১ হাজার ৬১৫ জন।

শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর মাধব চন্দ্র রুদ্র বলেন, পুণঃনিরীক্ষণে সাধারণত মোট চারটি দিক বিবেচনায় আনা হয়। এগুলো হলো উত্তরপত্রে সব প্রশ্নের সঠিকভাবে নম্বর দেয়া হয়েছে কিনা, প্রাপ্ত নম্বর গণনা ঠিক রয়েছে কিনা, প্রাপ্ত নম্বর ও এমআর। এসব বিষয় পরীক্ষা করেই পুনঃনিরীক্ষার ফল দেওয়া হয়। তার মানে কোনো শিক্ষার্থীর খাতা পুনরায় মূল্যায়ন হয় না। পুণঃনিরীক্ষায় কোন পরীক্ষকের এসএসসির খাতা দেখায় ভুল হলে রেজাল্ট প্রকাশের পর তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে গত কয়েক বছরের পরিসংখ্যানে দেখা যায়, যশোর শিক্ষাবোর্ডে উত্তরপত্র চ্যালেঞ্জের হার গত কয়েকবছর ধরে বাড়ছে। খাতা মূল্যায়নে ফল পরিবর্তনের সংখ্যাও বাড়ছে।

সূত্র : সমকাল
এম এন  / ০৮ জুন

যশোর

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে