Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০ , ৭ আশ্বিন ১৪২৭

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৬-১৭-২০২০

রংপুর সিটিতে রেডজোন ও লকডাউন ঘোষণা বৃহস্পতিবার

মেরিনা লাভলী


রংপুর সিটিতে রেডজোন ও লকডাউন ঘোষণা বৃহস্পতিবার

রংপুর, ১৭ জুন- রংপুর সিটিতে রেডজোন ও লকডাউনের ঘোষণা আসছে বৃহস্পতিবার। জেলা প্রশাসন, আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও স্বাস্থ্য বিভাগের যৌথ সমন্বয়ে করোনার দ্রুত সংক্রমন রোধে সংশ্লিষ্ট এলাকায় লকডাউন বাস্তবায়ন করা হবে। লকডাউন এলাকায় যেন কঠোরভাবে সরকারি নির্দেশনা অনুসরণ করা হয় সেজন্য দফায় দফায় বৈঠক ও মাঠ পর্যালোচনা করছে স্বাস্থ্য বিভাগ।  

রংপুর সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের প্রেরিত নির্দেশনা অনুযায়ী রংপুর জেলার ৮টি উপজেলা গঙ্গাচড়া, বদরগঞ্জ, তারাগঞ্জ, সদর, পীরগাছা, কাউনিয়া, মিঠাপুকুর ও পীরগঞ্জ উপজেলা এখন পর্যন্ত সবুজ জোনের আওতায় রয়েছে। এসব উপজেলাতে এখন পর্যন্ত করোনার দ্রুত সংক্রমণ হয়নি। রংপুর মেডিকেল কলেজে স্থাপিত পিসিআর ল্যাবে প্রতিদিন ২৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছে। 

এদিকে রংপুর নগরীতে করোনার সংক্রমন দ্রুত বাড়ছে। গড়ে প্রতিদিন ১০ জনের ওপরে শনাক্ত হচ্ছে। ১৬ জুন পর্যন্ত নগরীতে ৫৭১ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এমন পরিস্থিতিতে করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে স্বাস্থ্য বিভাগ, পুলিশ প্রশাসন ও সিটি কর্পোরেশন যৌথ উদ্যোগে কার্যক্রম শুরু করেছে। রংপুর নগরীর সেন্ট্রার রোড, গ্রান্ড হোটেল মোড়, ডিসির মোড়, শাপলা চত্ত্বর, বাংলাদেশ ব্যাংক মোড় এলাকায় পুলিশের চেকপোস্ট জোরদার করা হয়েছে। রিক্সা, সাইকেল, মোটরসাইকেল ব্যতিত কোনো যানবাহন নগরীর প্রধান এলাকায় প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে না। নগরীর প্রবেশ দ্বারে মহাসড়কগুলোতেও চেকপোস্ট বসিয়েছে মেট্রোপলিটন পুলিশ। গুরুত্বপূর্ণ সড়ক, হাট-বাজারে টহল, মাইকে জনসচেতনতামূলক প্রচারণা চালানো হচ্ছে। প্রয়োজন ছাড়া জনসমাগম হলেই পুলিশ ধাওয়া করে ছত্রভঙ্গ করে দিচ্ছে। এছাড়া প্রত্যেক নাগরিককে মাস্ক পরিধান নিশ্চিত করাসহ ৪টার মধ্যে দোকান-পাট বন্ধ করতে মাইকিং করছে পুলিশ ও সিটি কর্পোরেশন। এদিকে নগরীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে জেলা প্রশাসন ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করছে। 

স্বাস্থ্যবিধি ও সরকারী নির্দেশনা না মানার অপরাধে প্রতিদিন ব্যবসায়ীসহ সাধারণ মানুষকে জেল-জরিমানা গুনতে হচ্ছে। নগরীর সংক্রমণ রোধে রেড জোন চিহ্নিত করে কঠোর লকডাউন নিশ্চিতে প্রশাসনের দফায় দফায় বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার রেড জোন এলাকা চিহ্নিত করাসহ লকডাউন নিয়ে রংপুর জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে সভা অনুষ্ঠিত হবে। এতে প্রশাসন, পুলিশ ও স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা অংশ নিয়ে কর্মকৌশল নির্ধারণ করবেন। ইতোমধ্যে সিটি কর্পোরেশনের ৪, ১৬, ১৯, ২১, ২৩, ২৫নং ওর্য়াডে সবচেয়ে বেশি রোগী শনাক্ত হওয়ায় এ ওয়ার্ডগুলো সম্ভাব্য রেডজোনের মধ্যে রয়েছে। এসব ওয়ার্ড পুরোপুরি লকডাউন, আংশিক লকডাউন অথবা কিছু বাড়ি লকডাউনের ঘোষণা আসতে পারে। লকডাউন হওয়া ওয়ার্ড কিংবা এলাকায় সাধারণ মানুষের চলাচল, দোকানপাট, হাট-বাজার নিয়ন্ত্রণ ও স্বাস্থ্য বিধি প্রতিপালন কঠোরভাবে বাস্তবায়ন করা হবে। 

রংপুর সিভিল সার্জন হিরম্ব কুমার জানান, সিটি কর্পোরেশনের ৫টি ওয়ার্ডে এখন পর্যন্ত কোন করোনা রোগী শনাক্ত হয়নি। তাই ওইসব ওয়ার্ডও গ্রীণ জোনে রয়েছে। সিটি কর্পোরেশনের ৪, ২৩, ২৫নং ওয়ার্ডসহ যে সমস্ত ওয়ার্ডগুলোতে বেশি রোগী আছে সেগুলো রেড জোনের আওতায় পড়তে পারে। এনিয়ে বৃহস্পতিবার প্রশাসন ও পুলিশ বিভাগকে সাথে নিয়ে বৈঠক রয়েছে। সেখানে সিদ্ধান্ত হবে কোন কোন এলাকা রেড জোনের আওতায় পড়বে। 

রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোহাঃ আবদুল আলীম মাহমুদ বলেন, রংপুর নগরীতে করোনার সংক্রমণ রোধে স্বাস্থ্য বিভাগ ও প্রশাসনকে নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি। ইতোমধ্যে নগরীতে যানবাহন চলাচল সীমিত করা হয়েছে। নগরীতে যেন অহেতুক কেউ ঘোরাফেরা করতে না পারে, অবাধে যেন কেউ নগরীতে প্রবেশ ও বের হতে না পারে আমরা সেটি নিশ্চিত করেছি। করোনার সংক্রমণ যেসব এলাকায় বেশি রয়েছে সেখানকার হাট-বাজার, দোকানপাট ও সাধারণ মানুষের চলাচলও নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছে। রেডজোন এলাকা ঘোষণা হলে সেখানে আমরা আরও কঠোর হয়ে সরকারি নির্দেশনা বাস্তবায়ন করবো।

এম এন  / ১৭ জুন

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে