Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বৃহস্পতিবার, ৬ আগস্ট, ২০২০ , ২২ শ্রাবণ ১৪২৭

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৬-৩০-২০২০

সিদ্ধিরগঞ্জের ১৪৫ বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মানববন্ধন

হোসেন চিশতী সিপলু


সিদ্ধিরগঞ্জের ১৪৫ বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মানববন্ধন

নারায়ণগঞ্জ, ৩০ জুন- সিদ্ধিরগঞ্জের ১৪৫টি বেসরকারি কিন্ডারগার্টেন ও সমমানের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীরা সরকারি প্রণোদনাসহ ৬ দফা দাবিতে মানববন্ধন করেছেন।

সিদ্ধিরগঞ্জ বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঐক্য পরিষদের ব্যানারে ওই কর্মসূচি পালন করা হয় নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে। এতে ওই সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৫ শতাধিক শিক্ষক-শিক্ষিকা ফেস্টুন নিয়ে কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেন।

মানবন্ধন কর্মসূচিতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, সিদ্ধিরগঞ্জ বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঐক্য পরিষদের প্রধান উপদেষ্টা সাংবাদিক বিল্লাল হোসেন রবিন।

সংগঠনের সভাপতি মো. মজিবুর রহমানের সভাপতিত্বে ও সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আরিফ হোসেন ঢালীর সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে আরও বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ বেসরকারি প্রাথমিক ও কিন্ডারগার্টেন শিক্ষক সমিতির সভাপতি এমএ সিদ্দিক মিয়া, ঢাকা কিন্ডারগার্টেন এসোসিয়েশনের সদস্য সচিব জি.এইচ ফারুক, বেসরকারি প্রাথমিক ও কিন্ডারগার্টেন শিক্ষক সমিতির মহাসচিব শেখ মিজানুর রহমান, বাংলাদেশ কিন্ডারগার্টেন স্কুল এন্ড কলেজ ঐক্য পরিষদের চেয়ারম্যান প্রিন্সিপাল ইকবাল বাহার চৌধুরী ও শিক্ষা সচিব প্রিন্সিপাল মোহাম্মদ আব্দুল ওদুদ, রূপগঞ্জ কিন্ডারগার্টেন ও শিক্ষা উন্নয়ন সমিতির মহাসচিব লায়ন সালেহ আহমদ, সিদ্ধিরগঞ্জ বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মো. জাকির হুসাইন, শিফা ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের পরিচালক সাংবাদিক মো. শাহাদাৎ হোসেন স্বপন, সোনারগাঁও কিন্ডারগার্টেন এসোসিয়েশনের সভাপতি মো: মোস্তাফিজুর রহমান, নারায়ণগঞ্জ সদর কিন্ডারগার্টেন এসোসিশেনের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. কাউছার আহমেদ।

মানববন্ধন কর্মসূচীতে বক্তারা বলেন, করোনাভাইরাসের সংক্রামন প্রতিরোধে সরকারের ঘোষণা মোতাবেক গত ১৭ মার্চ সিদ্ধিরগঞ্জের ১৪৫টি বেসরকারি কিন্ডারগার্টেন ও সমমানের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে।

যার কারণে চরমভাবে আর্থিক সংকটে পড়েছে এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো। তাছাড়া স্কুল বন্ধ থাকায় এবং লকডাউনের কারণে শিক্ষক-শিক্ষিকারা প্রাইভেট টিউশনীও করতে পারছে না।

এছাড়া প্রায় ৯৫ শতাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানই ভাড়া বাড়িতে পরিচালিত। বাড়ি ভাড়া, শিক্ষক-শিক্ষিকাদের বেতন, বিদ্যুৎ ও পানির বিল পরিশোধ করতে হয় ছাত্র-ছাত্রীদের মাসিক টিউশন ফি থেকে।

কিন্তু স্কুল বন্ধ থাকার কারণে স্কুল কর্তৃপক্ষ, শিক্ষক-শিক্ষিকারা অর্থনৈতিকভাবে নিদারুন কষ্টে দিনাতিপাত করছেন। শিক্ষকরা না পারেন কারো কাছে হাত পাততে, না পারেন লাইনে দাঁড়িয়ে সাহায্যে নিতে।

এমন পরিস্থিতিতে নিরুপায় হয়ে আজ শিক্ষকরা রাস্তায় নেমেছেন তাদের কস্টের কথা প্রধানমন্ত্রীকে জানাতে।

মানববন্ধন কর্মসুচি থেকে ৬ দফা দাবি পেশ করা হয়। দাবীগুলো হল- নন-এমপিও ভুক্ত শিক্ষকদের মতো কিন্ডারগার্টেন শিক্ষকদের আর্থিক সহায়তা প্রদান করা, করোনাভাইরাসের এই দুঃসময় উত্তরণে কিন্ডারগার্টেন ও সমমানের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোকে প্রণোদনার ব্যবস্থা করা- যা সহজশর্তে ঋণ হিসেবে দেয়া যেতে পারে, কিন্ডারগার্টেন শিক্ষক-শিক্ষিকা ও কর্মচারীদের জন্য রেশন কার্ডের ব্যবস্থা করা, করোনাভাইরাসের সংক্রমনের বিস্তার কমে গেলে স্বাস্থ্যবিধি মেনে দ্রুত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো খুলে দেয়ার ব্যবস্থা করা, সহজশর্তে-কিন্ডারগার্টেন স্কুলগুলোকে নিবন্ধনের আওতায় আনা, প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি) পরীক্ষার মতো নিজ স্কুলের নামে জেএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ দেয়া।

এম এন  / ৩০ জুন

নারায়নগঞ্জ

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে