Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বৃহস্পতিবার, ১ অক্টোবর, ২০২০ , ১৬ আশ্বিন ১৪২৭

গড় রেটিং: 2.7/5 (31 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০২-০৪-২০১২

বিরামপুর সীমান্তে বিএসএফের নির্যাতনে বাংলাদেশীর মৃত্যু

বিরামপুর সীমান্তে বিএসএফের নির্যাতনে বাংলাদেশীর মৃত্যু
দিনাজপুরের বিরামপুর সীমান্তে সাইফুল ইসলাম (২৫) নামের এক বাংলাদেশীকে বিএসএফ নির্যাতন করে হত্যা করেছে। বৃহস্পতিবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। বিজিবি বাংলাদেশীর নিহত হওয়ার বিষয়টি স্বীকার করেছে। সাইফুল ইসলাম বিরামপুর উপজেলার ৬নং জোতবানী ইউনিয়নের চতুরপুর গ্রামের মো. নবীতুল্লাহ মণ্ডলের চতুর্থ পুত্র। সে একজন কৃষক।
নিহতের বড় ভাই নজরুল ইসলাম (৩৫) জানান, তাদের পরিচিত ভারতের দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার হিলি থানার শ্রীরামপুর গ্রামের দারগা নামের এক ব্যক্তি তাকে মোবাইল ফোনে গতকাল সকাল ৯টায় মৃত্যুর খবর জানায়। দারগা জানায়, বিএসএফ রাইফেলের বেয়নেট দিয়ে খুঁচিয়ে তার ভাইকে হত্যা করতে দেখেছে। সাইফুল ইসলামের ছোট ভাই বাবু জানায়, বৃহস্পতিবার বিকালে তার ভাই বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়। তারপর সে আর বাড়ি ফিরে আসেনি। সাইফুল ইসলাম ৭ মাস আগে বিয়ে করেন। তার স্ত্রী রোজিনা বেগম (২০) পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। স্বামীর মৃত্যুর খবরে তিনি এখন দিশাহারা। ভাইগড় ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার রজব আলী জানান, নিহতের পরিবার ও পার্শ্ববর্তী লোকজনের কাছ থেকে ভারতে বাংলাদেশী নিহতের খবর শুনে পতাকা বৈঠকের জন্য তিনি ভারতের ২৮ ব্যাটালিয়নের ভীমপুর কোম্পানি কমান্ডারকে চিঠি দেন। গতকাল দুপুর ১টায় ২৯১ মেইন পিলারের ২০ সাব পিলারের কাছে পতাকা বৈঠক হয়। রজব আলী জানান, ভীমপুর ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার এসকে সিং তাদের জানায়, বিএসএফ কোন বাংলাদেশীকে হত্যা করেনি। তবে সকালে ভারতের শ্রীরামপুর সীমান্ত থেকে দুই কিলোমিটার দূরে লালপুর নামক স্থানে এক ফসলের মাঠে একটি লাশ পড়ে থাকার খবর পেয়ে তারা দেখতে যান। পরে লাশটি ভারতের হিলি থানার পুলিশ এসে ময়নাতদন্তের জন্য নিয়ে যায় বলে ভীমপুর কোম্পানি কমান্ডার তাকে অবগত করেন।
৪০ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক (ভারপ্রাপ্ত) মেজর তারেক ইফতেখার সীমান্তে বাংলাদেশী নিহত হওয়ার সত্যতা স্বীকার করেন। তবে সীমান্তের দুই কিলোমিটার অভ্যন্তরে লাশ থাকার বিষয়টি রহস্যজনক বলে তিনি জানান। জোতবানী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান আলী মন্ডল জানান, বিএসএফ গুলি না করে তাকে  বেয়নেট দিয়ে খুঁচিয়ে মেরেছে। দোষ এড়াতে তারা লাশ দূরে ফেলে রেখে আসে। এটা তাদের একটি কৌশল। উল্লেখ্য, গত ১৬ই ডিসেম্বর রাত ১১টায় বিরামপুর সীমান্তে বিএসএফ গুলি করে উপজেলার কাটলা ইউনিয়নের দক্ষিণ দাউদপুর গ্রামের সিদ্দিক সরকারের পুত্র কৃষক মতিয়ার রহমান (২০) ও রনগ্রামের আছির উদ্দিনের পুত্র ভ্যানচালক তাইজুল ইসলাম (২৬)কে  হত্যা করে।

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে