Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০ , ১৩ আশ্বিন ১৪২৭

গড় রেটিং: 2.8/5 (15 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ০৭-০৩-২০১৪

ইংরেজি মাধ্যম স্কুলগুলো মানছে না নিয়ম, ব্যবস্থা নিচ্ছে না মন্ত্রণালয়

ইংরেজি মাধ্যম স্কুলগুলো মানছে না নিয়ম, ব্যবস্থা নিচ্ছে না মন্ত্রণালয়

ঢাকা, ০৩ জুলাই- ইংরেজি মাধ্যম স্কুলের বিষয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয় বরাবরই উদাসীন। স্বতঃস্ফূর্তভাবে উদ্যোগী হতে দেখা যায় না তাদের। তবে যখনই অভিভাবকরা একটু নড়েচড়ে বসেন তখন কিয়ৎকালের জন্য ঘুম ভাঙে মন্ত্রণালয়ের। প্রতিবছর জুলাই মাসে ইংরেজি মাধ্যম স্কুলগুলোর সেশন শুরু হলে অভিভাবকদের চাপে মন্ত্রণালয় একটি কমিটি গঠন করে কয়েকটি সভা করে। এর পর আবার সারা বছরের জন্য ঘুম। ২০১২ ও ২০১৩ সালেও দুই-তিনটি সভা করেছিল মন্ত্রণালয়। এ বছরও একই পথে হাঁটছে তারা।

ইংরেজি মাধ্যম স্কুলগুলোর বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ। কিন্তু এখন পর্যন্ত কোনো ব্যবস্থা নিতে দেখা যায়নি। পৃথক নীতিমালা না থাকায় স্কুল কর্তৃপক্ষ বেপরোয়া আচরণ করে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে ইংরেজি মাধ্যম স্কুল নিয়ন্ত্রণের জন্য নামকাওয়াস্তে একটি শাখা থাকলেও বাস্তবে এর কোনো তৎপরতা দেখা যায় না। নানা কৌশলে বছর বছর বেতন ও ফি বাড়ানো যেন নিয়ম হয়ে দাঁড়িয়েছে স্কুলগুলোতে। অতিরিক্ত ফির চাপে চিঁড়েচ্যাপ্টা দশা অভিভাবকদের। তাঁদের মতামতের কোনো মূল্যই দেয় না স্কুল কর্তৃপক্ষ। ইতিমধ্যে মধ্যবিত্তের নাগালের বাইরে চলে গেছে স্কুলগুলো। যে অভিভাবকরা প্রতিবাদ করছেন তাঁদের সন্তানদের স্কুল থেকে বের করে দেওয়ার হুমকি দিচ্ছে কিছু স্কুল কর্তৃপক্ষ।

‘ও’ এবং ‘এ’ লেভেলের ইংরেজি মাধ্যম স্কুলগুলোর রেজিস্ট্রেশন দেয় ঢাকা শিক্ষা বোর্ড। তাদের তথ্যমতে ঢাকা বোর্ডের অধীনে ‘ও’ এবং ‘এ’ লেভেলের রেজিস্ট্রেশন নিয়েছে ৯৩টি স্কুল। এর বাইরেও ৩১টি স্কুল আছে। রেজিস্ট্রেশন ঢাকা বোর্ড থেকে নিলেও তাদের পরীক্ষা হয় ব্রিটিশ কাউন্সিলের আওতায়।

বেনবেইসের ২০১১ সালের তথ্যানুযায়ী, সারা দেশে তিন ক্যাটাগরিতে ১৫৯টি ইংরেজি মাধ্যম স্কুল রয়েছে। ‘ও’ লেভেলের ৬৪টি এবং ‘এ’ লেভেলের ৫৪টি; জুনিয়র লেভেলের ৪১টি। অথচ সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বলছেন, সারা দেশে ইংরেজি মাধ্যম স্কুলের সংখ্যা ১৫ থেকে ২০ হাজার। এসবের মধ্যে অলিগলিতে গজিয়ে ওঠা স্কুলের সংখ্যাই বেশি। তারা কোনো কারিকুলামের ধার ধারে না। নিজেদের কারিকুলামে জুনিয়র লেভেল পর্যন্ত পড়ায়।

সম্প্রতি সেশন চার্জ বাতিলের প্রতিবাদে আন্দোলন শুরু করেছেন অভিভাবকরা। একটি রিটের পরিপ্রেক্ষিতে গত ২৩ এপ্রিল হাইকোর্ট বেঞ্চ দেশের সব ইংরেজি মাধ্যম স্কুলে পুনঃ ভর্তি বা সেশন চার্জ আদায়ের ওপর তিন মাসের নিষেধাজ্ঞা জারি করেন।

হাইকোর্ট নিষেধাজ্ঞা জারি করলেও তা আমলে নিচ্ছে না ইংরেজি মাধ্যম স্কুলগুলো। কোনো কোনো স্কুল সেশন চার্জ না নিয়ে নানা কৌশলে মাসিক বেতন বাড়িয়ে দিয়েছে। এ অভিযোগে গত ৩ জুন আরেক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে শিক্ষাসচিব, মাউশি ও প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের (ডিপিই) মহাপরিচালক এবং স্কলাস্টিকা, সানি ডেল, সাউথ ব্রিজ, ইউরোপীয় স্ট্যান্ডার্ড ও ম্যাপললিফ স্কুলের অধ্যক্ষকে আদালত অবমাননার নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

এতে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে বর্ধিত ফি অভিভাবকদের ফেরত দিতে বলা হয়েছে। না দিলে তাঁদের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার মামলা দায়ের করার আদেশ দেওয়া হয়েছে। রিটকারীর আইনজীবী জানান, এরপর আদালত বন্ধ হয়ে যাওয়ায় পরবর্তী অবস্থা জানা যায়নি। আদালত খুললে কী জবাব এসেছে তা জানা যাবে।

শিক্ষা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে